মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতকারীদের শাস্তির আইন দশম সংসদেই

গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতকারীদের শাস্তির বিধান রেখে দশম সংসদেই আইন প্রণয়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।  তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি অপরাধ আইন’ নামে এ ধরনের একটি আইনের খসড়া ইতিমধ্যেই প্রণয়ন করা হয়েছে। শিগগিরই সেটি মন্ত্রিসভায় উত্থাপন করা হবে এবং বর্তমান দশম সংসদের মেয়াদকালেই আইনটি পাশ হবে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে এ কথা জানান আইনমন্ত্রী।

এর আগে গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতকারীদের শাস্তির জন্য আইন প্রণয়নের প্রস্তাব জাতীয় সংসদে গৃহীত হয়।

সংসদ সদস্য বেগম ফজিলাতুন্নেছা বাপ্পী আজ সংসদে এই আইন প্রণয়নের সিদ্ধান্ত প্রস্তাবটি উত্থাপন করেন। প্রস্তাবটি গ্রহণের সম্মতি দিয়ে আইন বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল

হক বলেন, এটি একটি সময়োপযোগী প্রস্তাব ও সিদ্ধান্ত।

নয়জন সাংসদ এ প্রস্তাবে দুই একটি শব্দ সংশোধনের প্রস্তাব করেন। তবে আইনমন্ত্রী সংশোধনী প্রস্তাব গ্রহণ করেননি।

ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংসদ অধিবেশনে সিদ্ধান্ত প্রস্তাবটি গ্রহণের সময় সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপস্থিত ছিলেন। ডেপুটি স্পিকার প্রস্তাবটি অনুমোদনের জন্য ভোটে দিলে তা সর্বসম্মতিক্রমে তা গৃহীত হয়। সবাই বিপুল করতালি দিয়ে এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানান।

সিদ্ধান্ত প্রস্তাবটি উত্থাপন করে সাংসদ ফজিলাতুন নেসা বাপ্পি বলেন, সরকার ২৫ মার্চকে গণহত্যা দিবস হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে। এখন প্রয়োজন গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতকারীদের শাস্তির জন্য আইন প্রণয়ন করা। বিশ্বের ১৭টি দেশে ‘হলোকাস্ট অস্বীকার আইন’আছে।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>