রমজান উপলক্ষে আজ থেকে শুর“ হ”েছ বরিশালে টিসিবি’র পন্য বিক্রি

আপডেট : May, 16, 2017, 9:45 am

আসন্ন মাহে রমজানকে ঘিরে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মুল্য স্বাভাবিক রাখতে ন্যায্য মুল্যে পন্য বিক্রির কার্যক্রম আজ সোমবার থেকে শুর“ করতে যা”েছ ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। ধারাবাহিকতায় বরিশাল বিভাগের ৬ জেলা সহ শরিয়তপুর এবং মাদারীপুর জেলায় পন্য দ্রব্য বিক্রি শুর“র কথা রয়েছে। এদিকে রোববার পর্যন্ত তেমন কোন ডিলার আবেদন জমা দেয়নি। তবে আবেদনের প্রেক্ষিতে বরিশাল ও ঝালকাঠি জেলায় ট্রাক সেলের জন্য ৭ ডিলারকে অনুমতি দেয়া হয়েছে। যারমধ্যে বরিশাল নগর এলাকায় ৫টি ও ঝালকাঠি জেলায় ২টি ট্রাক রয়েছে। যারা আজ টিসিবি থেকে পণ্য উত্তোলনের পাশাপাশি জনসাধারণের নিকট বিক্রি শুর“ করবেন। টিসিবি সূত্র জানায়, রমজানকে ঘিরে ইতিমধ্যেই টিসিবি’র পণ্য নগরীর বান্দ রোডে সিএসডিতে ( ত্রিশ গোডাউন) পৌছে গেছে। এর মধ্যে রমজান উপলক্ষে প্রথম বরাদ্দে ১০৫ টন অস্ট্রেলিয়ান মশুর ডাল, ১২০ টন ছোলা বুট, ৮০ হাজার লিটার উন্নতমানের ভোজ্য (সয়াবিন) তেল এবং একশ টনের মতো চিনি গুদামজাত করা হয়েছে। প্রতিজন ট্রাক সেলের ডিলার চিনি ও ছোলা ৪০০ কেজি, মশুর ডাল আড়াইশ কেজি ও চারশ লিটার ভোজ্য তেল পাবে। টিসিবি’র আঞ্চলিক কার্যালয়ের অপারেটর মো. সহিদুল ইসলাম জানান, ভোক্তা পর্যা য়ে প্রতিকেজি মশুর ডাল ৮০ টাকা, ছোলা বুট ৭০ টাকা, সয়াবিন ৮৫ টাকা এবং চিনি ৫৫ টাকা করে নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে সিটি এলাকার নির্দিষ্ট ৫০ কিলোমিটারের ভেতরে এবং

বাইরে পণ্য দ্রব্য মূল্য এক টাকা কম বেশি হবে। প্রতিজন ভোক্তা প্যাকেজ অনুযায়ী চিনি ও ছোলা বুট ৪ কেজি, তেল পাঁচ লিটার, মশুর ডাল ৩ কেজি করে কিনতে পারবে। আবার প্যাকেজের বাইরেও ভোক্তারা যেভাবে চাইবে সেভাবে পন্য-দ্রব্য কিনতে পারবে। রমজানের প্রথম বরাদ্দের চাহিদাপত্র গ্রহনের মেয়াদ চলতি মাসের ২৬ তারিখ পর্যন্ত থাকবে। এর পরে আবার রমজানের দ্বিতীয় বরাদ্দ দেয়া হবে। তিনি বলেন, বরিশাল বিভাগের ৬ জেলা সহ শরিয়তপুর ও মাদারীপুর সহ ৮ জেলায় টিসিবি’র মোট ১২১ জন নিয়োগপ্রাপ্ত ডিলার রয়েছে। এদের সকলকেই রমজানের বরাদ্দের বিষয়টি জানিয়ে দেয়া হয়েছে। আজ সকাল ৮টা থেকে ১০টার মধ্যে অনেকেরেই আসার কথা রয়েছে। এদিকে খুচরা বাজারে এক সপ্তাহের ব্যবধানে ওঠানামার মধ্য দিয়ে প্রতিকেজি ছোলাবুট ৮৫ টাকা, চিনি ৬৫ টাকা, মশুর ডাল ৮০-১০৫ টাকা, সয়াবিন ৯০ টাকা দরে বিক্রি হ”েছ। বেড়েছে আদা ও রোসুনের দামও, এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজি প্রতি আদা ও রোসুনে বেড়েছে ২০ টাকা। স্বাভাবিক রয়েছে আলু, পিয়াজ, মুগ ডাল, চিরা, গুড়ের দাম। তবে গত ২৫ দিনে বরিশালে স্বর্না, মিনিকেট, আঠাশ, সুপারসহ বেশ কিছু চালের দাম কেজি প্রতি ২ থেকে ৬ টাকা পর্য ন্ত বেড়েছে বলে জানিয়েছেন চৌমাথার ব্যবসায়ী তরিকুল ইসলাম। তিনি জানান, ¯’ানীয় পর্যােয়ে মজুদ নেই, নতুন চাল আসার সময় অতিবাহিত হতে থাকলেও মূল জায়গা থেকেই চাল আসছে না।

Facebook Comments