রাজাপুরে কলেজছাত্রীকে অপহরন ও নির্যাতনের অভিযোগে থানায় মামলা

ঝালকাঠি প্রতিনিধি: বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ঝালকাঠির রাজাপুরে আয়শা আক্তার নামে এক কলেজ ছাত্রীকে অপহরন ও নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়াগেছে। কৌশলে পালিয়ে এসে নির্যাতিত ওই কলেজ ছাত্রী নিজেই বাদী হয়ে মাইনুল ইসলাম নামে এক যুবককে প্রধান আসামী করে রাজাপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত মাইনুল উপজেলার দক্ষিন রাজাপুর গ্রামের তানজের সিকদারের ছেলে ও কলেজ ছাত্রী আয়শা আক্তার উপজেলার রোলা গ্রামের মো. শাহ্ আলম হাওলাদারের মেয়ে। এ ঘটনায় মাইনুল ইসলাম সহ অজ্ঞাতনামা আরো দুজনকে আসামী করা হয়েছে।
মামলার বিবরণে জানাগেছে, বৃহস্পতিবার (১৫ জুন) দুপুরে রাজাপুরে একটি কম্পিউটারের দোকানে আয়শা আক্তার স্নাতকে ভর্তির জন্য অনলাইনে আবেদন করতে আসে। এ সময় তাঁর পিছু নিয়ে মাইনুল ইসলাম ও তার সহযোগিরা ওই দোকানে যায়। কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে তাকে জোর করে মোটরসাইকেলে তুলে বখাটে মাইনুল ও তার সহযোগীরা এক আত্মীয়ের বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে আয়শাকে শারীরিক নির্যাতন করা হয়। মারধরের এক পর্যায়ে আয়শা অচেতন হয়ে পড়ে। এলোপাথারি কিল-ঘুষিতে আয়শার মুখমন্ডল রক্তাক্ত জখম হয়। কিছু সময় পরে আয়শার চেতন ফিরলে নিজেকে একটি ঘরের মধ্যে দেখতে পায়। পরে সে কৌশলে সেখান থেকে

পালিয়ে স্বজনদের সহযোগীতায় রাজাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। পরের দিন শুক্রবার দুপুরে রাজাপুর থানায় এসে নিজেই বাদী হয়ে মামলা দায়ের করে।
আয়শা আক্তার জানায়, আমি রাজাপুরের আলহাজ্ব লালমোন হামিদ মহিলা কলেজ থেকে এবছর এইচএসসি পাস করেছি। কলেজে আসা যাওয়ার সময় দীর্ঘ দিন ধরেই মাইনুল ইসলাম আমাকে উত্যক্ত করে আসছে। সে বিভিন্ন সময় আমাকে প্রেম ও বিয়ের প্রস্তাব দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় মাইনুল আমার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।
অপরদিকে অভিযুক্ত মাইনুল মুঠোফোনে বলেন, অপহরনের বিষয়টি সম্পূর্ন মিথ্যা। আয়শার সাথে আমার গত তিন বছর যাবত প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে মাইনুল জানায়, আমার কাছ থেকে আয়শা বিভিন্ন সময় টাকা নিত। ঘটনার দিন আয়শা আমার কাছে ১৩ হাজার টাকা চাইলে আমি টাকা নেওয়ার কারন জানতে চাই। এ নিয়ে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে আয়শা প্রথমে আমাকে চড়মারে। এরপর আমিও আয়শাকে চড়মারি।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে রাজাপুর থানা পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) মো. হারুন অর রশীদ বলেন, এ ঘটনায় কালেজ ছাত্রীর লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগ পাওয়ার পরে পুলিশের একাধিক দল অভিযুক্ত মাইনুলকে গ্রেপ্তার করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করছে।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>