রাজাপুরে স্কুল ছাত্রীকে রাস্তা থেকে তুলে নেয়ার চেষ্টা বখাটের, নিরাপত্তাহীনতায় পরিবার

জুলাই ০৫ ২০১৭, ০০:৪৭

ডেস্ক রিপোর্টঃ ঝালকাঠির রাজাপুরের জিকে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৪) স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথিমধ্যে ছোট কৈবর্তখালি ফকিরের হাট এলাকার স্কুল সংলগ্ন রাস্তা থেকে তুলে নেয়ার চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে ঝালকাঠি ইসলামী ব্যাংক শাখার ক্যাশিয়ার ওই এলাকার রুহুল আমিনের ছেলে বখাটের মাদকসেবী ছেলে তুহিন হাওলাদারের (২৫) বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার ওই ছাত্রী ও তার মা স্কুলে এসে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের কাছে মৌখিকভাবে অভিযোগ দিয়েছেন। তবে এলাকার চিহ্নিত মাদকসেবী বখাটে তুহিনের বিরুদ্ধে ভয়ে পুলিশ প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দিতে চাচ্ছেন না ওই ছাত্রীর পরিবার। এমন পরিস্থিতিতে ওই ছাত্রীর স্কুলে আসা-যাওয়া নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন তারা। ছাত্রী ও তার মা অভিযোগে জানান, আবহাওয়া খারাপ থাকায় ২ জুলাই দুপুরে স্কুল ছুটি দিলে ওই ছাত্রী রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিল। এসময় ছোট কৈবর্তখালি ফকিরের হাট এলাকার প্রাইমারী স্কুল সংলগ্ন রাস্তায় এলে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা ১ সন্তানের জনক বখাটে তুহিনের ঘর ঘালি থাকার সুযোগে তুহিন অসৎ উদ্দেশ্যে ওই ছাত্রীকে রাস্তা থেকে তুলে তার ঘরে নেয়ার চেষ্টা করলে ওই ছাত্রীর ডাক-চিৎকারে স্থানীয় প্রাইমারী

স্কুলের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা এগিয়ে এলে তুহিন পালিয়ে যায়। ছাত্রীর মা অভিযোগ করেন, তুহিন মাদকাসক্ত ও বখাটে হিসেবে এলাকায় পরিচিত। এর আগেও এলাকায় এ রকম অগনিত ঘটনা ঘটালেও তার বিরুদ্ধে ভয়ে কেহ কোন ব্যবস্থা নেয়নি। এসব কারনে তিনিও পুলিশ প্রশানের কাছেও তারা অভিযোগ দিতে ভয় পাচ্ছেন। বর্তমানে ওই বখাটের ভয়ে ওই ছাত্রীর স্কুলে পড়ালেখা নিয়ে তার দরিদ্র পরিবার আতঙ্কে রয়েছেন। এ বিষয়ে অভিযুক্ত তুহিনের মতামত না পেলেও তার বাবা ঝালকাঠি ইসলামী ব্যাংক শাখার ক্যাশিয়ার রুহুল আমিন অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, মানসম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য এলাকার কিছুু লোক মিথ্যা বানোয়াট কথা বলছে, ছেলে হয়তো ওই ছাত্রী কোথায় যাচ্ছে তা জানতে চেয়েছিলো। জিকে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিদ্যুৎ চন্দ্র কবিরাজ জানান, এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর দরিদ্র নিরীহ পরিবারটি তাদের মৌখিকভাবে জানালেও তারা পুলিশ প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করতে চাচ্ছেন না। তবে এ নেক্কারজনক ঘটনার সাথে জড়িত তুহিনের বিচার দাবি করেছেন। ইউএনও আফরোজা বেগম পারুল জানান, তাৎক্ষনিক বিষয়টি জানালে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে শাস্তির ব্যবস্থা করা হতো, তবুও বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে।

 

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>