রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের চেষ্টায় মোদী

আপডেট : May, 29, 2017, 3:54 pm

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রাশিয়ার সঙ্গে নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়া সম্পর্ক উন্নয়নের চেষ্টা চালাবেন। চলতি সপ্তাহে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে মোদীর সাক্ষাতের কথা রয়েছে। এদিকে বিশ্লেষকরা বলছেন, সম্পর্ক উন্নয়নে মস্কোর আগ্রহ নিয়ে ভারতের সংশয় ও সন্দেহের প্রেক্ষাপটেই এ চেষ্টা চালাবেন মোদী।
সেন্ট পিটার্সবার্গে শীর্ষ সম্মেলনের প্রাক্কালে বৃহস্পতিবার এ দুই নেতা বৈঠকে ভারত ও রাশিয়ার মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদার এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাদের পরিবর্তনশীল বৈশ্বিক সম্পর্ক নিয়ে সৃষ্ট উত্তেজনা নিরসনের চেষ্টা চালাবেন। উল্লেখ্য, দু’দেশের মধ্যে একসময় জোরদার অর্থনৈতিক সম্পর্ক থাকলেও বর্তমানে তা আর নেই।
স্নায়ুযুদ্ধ চলাকালে এ দু’দেশের মধ্যে ভালো সম্পর্ক বজায় থাকায় সোভিয়েত ইউনিয়ন ভারতের বৃহত্তম বাণিজ্যিক অংশীদার, কূটনৈতিক মিত্র এবং প্রধান অস্ত্র সরবরাহকারী দেশ ছিল। ভারতে ট্যাঙ্ক থেকে শুরু করে বিমান সবকিছুই সোভিয়েত ইউনিয়ন থেকে সরবরাহ করা হতো।
কিন্তু ইউএসএসআরের পতনের পর থেকেই এ দু’দেশের
মধ্যে সম্পর্কে ভাটা পড়তে থাকে। এ প্রেক্ষাপটে ভারত বৈশ্বিক অর্থনৈতিক সম্পর্কের ধারা পরিবর্তন করে পশ্চিমা দেশগুলোর সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক গড়ে তোলার ব্যাপারে ক্রমেই আগ্রহী হয়ে ওঠে।
ব্রুকিং ইন্ডিয়ার ফরেন পলিসি ফেলো ধ্রুব জয়শঙ্কর বলেন, ‘ভারতের জন্য রাশিয়া গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার দেশ হলেও তাদের মধ্যে সম্পর্কের ভিত্তি অনেক দুর্বল।’
তিনি আরো বলেন, ‘দু’দেশে জনগণের মধ্যে যোগাযোগ সীমিত। খুব কম সংখ্যক ভারতীয় তরুণ রাশিয়ায় পড়ালেখা করতে যায়। তবে তথ্য প্রযুক্তিখাতে সম্পর্ক বজায় রাখার ক্ষেত্রে দু’দেশ তুলনামূলকভাবে এগিয়ে রয়েছে।’
সাক্ষাতকালে এ দুই নেতা ভারতের দক্ষিণাঞ্চলে একটি পারমাণবিক কেন্দ্রে আরো চুল্লি সরবরাহের ব্যাপারে মস্কোর সঙ্গে চুক্তির কাঠামো নিয়ে আলোচনা করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ভারত তাদের সামরিক হার্ডওয়্যারের জন্য একসময় মস্কোর ওপর নির্ভরশীল থাকলেও সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সোভিয়েত আমলের প্রতিরক্ষা সরঞ্জামাদির আধুনিকায়নে তারা ক্রমেই যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স ও ইসরাইলের দিকে ঝুঁকে পড়ে। এএফপি।
Facebook Comments