শেবাচিম হাসপাতালে রেডিওলজি বিভাগে রোগীদের ভোগান্তি

ফেব্রুয়ারি ২৫ ২০১৭, ০৮:১৯

সিরিয়াল আগে পরীক্ষা-নিরীক্ষা পরে। তাদের এ নিয়মে চলতে গেলে রোগী মারাও যেতে পারে। কষ্টের সুরে এক রোগীর স্বজন হেলেন এসব কথা বলেন। শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে রেডিওলজি বিভাগে আলট্রাসনোগ্রাফি মেশিন থাকার পরে রোগীদের পরীক্ষা করাতে হচ্ছে বাহিরে থেকে। হাসপাতালের রেডিওলজি বিভাগে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আলট্রাসনোগ্রাফি মেশিন সচল থাকলেও প্রতিদিন ৫ জন রোগীর বেশি আলট্রাসনোগ্রাফি করা হয় না। সিরিয়াল অনুসারে ৫ জন রোগীর পর আর কারও আলট্রাসনোগ্রাফি করা হয় না। মুমূর্ষু রোগীদের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম। সিরিয়ালের বাইরে কোনো পরীক্ষা এখানে হয় না। ফলে প্রতিদিন ২৫ থেকে ৩০ জন রোগী আলট্রাসনোগ্রাফি

করতে এসে হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছে। অথচ রেডিওলজি বিভাগে ৭ জন ডাক্তার কর্মরত রয়েছে। পরে বাধ্য হয়ে রোগীরা হাসপাতালে ২২০ টাকার আলট্রাসনোগ্রাফি পরীক্ষা বাইরে থেকে ৮৫০ টাকায় করছে। যা অনেক গরিব রোগীদের ক্ষেত্রে কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ছে। এছাড়া হাসপাতালে আলট্রাসনোগ্রাফি করতে আসা রোগী ও তাদের স্বজনদের অভিযোগ রেডিওলজি বিভাগে ডাক্তাররা কর্মস্থলে দুই ঘণ্টার বেশি থাকেন না। রেডিওলজি বিভাগের আলট্রাসনোগ্রাফি মেশিন সচল থাকার পরেও ৫ জন রোগীর পরীক্ষা করার কথা স্বীকার করে হাসপাতালের পরিচালক ডা. এসএম সিরাজুল ইসলাম বলেন, রোগীদের স্বাস্থ্যসেবার লক্ষ্যে আলট্রাসনোগ্রাফি পরীক্ষা বৃদ্ধি করার জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের বিভাগীয় প্রধানকে বিশেষভাবে বলা হয়েছে।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>