সম্ভাবনা কাজে লাগালে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা উপকৃত হবে: রাষ্ট্রপতি

আপডেট : July, 15, 2017, 12:06 am

ডেস্ক রিপোর্টঃ রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা যৌথ উদ্যোগে সম্ভাবনা কাজে লাগালে উভয় দেশই উপকৃত হবের
এজন্য তথ্য-প্রযুক্তি, পর্যটন, মৎস্য সম্পদ আহরণ, কৃষি ও স্বাস্থ্য খাতসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ঢাকা ও কলম্বোকে যৌথ উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

শুক্রবার রাজধানীর বঙ্গভবনে সফররত শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনার সঙ্গে সাক্ষাতের সময় রাষ্ট্রপতি এ আহ্বান জানান।

শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি সিরিসেনা সন্ধ্যা ৭টায় বঙ্গভবনে পৌঁছেন। এ সময় তাকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।

পরে দুই দেশের রাষ্ট্রপ্রধান বঙ্গভবনের ক্রেডেনশিয়াল হলে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন।

সাক্ষাৎ শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের অবহিত (ব্রিফ) করেন।

তিনি বলেন, সাক্ষাতের সময় রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার এবং এ সম্পর্ক ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ- শ্রীলঙ্কা সার্ক-বিমসটেকসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক সংস্থায়

একে অপরকে সমর্থন করে যাচ্ছে।

দুই দেশের সম্পর্ক উন্নয়নে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্টের এই সফর মাইলফলক হিসেবে কাজ করবে বলেও উল্লেখ করেন রাষ্ট্রপতি।

আবদুল হামিদ দুই দেশের বাণিজ্য-বিনিয়োগ সম্ভাবনার কথা উল্লেখ করে বলেন, যৌথ উদ্যোগে এসব সম্ভাবনা কাজে লাগালে উভয় দেশই উপকৃত হবে।

বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশকে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে উদার দেশ হিসেবে উল্লেখ করে শ্রীলঙ্কার বিনিয়োগকারীদের এ সুযোগ কাজে লাগানোর আহ্বান জানান তিনি।

এছাড়া শ্রীলঙ্কার জাতিগত পুনর্গঠন দেশটির উন্নয়ন আরও তরান্বিত করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।
প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন জানান, সাক্ষাতে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা।

শ্রীলঙ্কা সব সময় বাংলাদশকে পরীক্ষিত বন্ধু মনে করে উল্লেখ করে এদেশের উন্নয়ন-অগ্রগতির ধারা ভবিষ্যতে আরও গতিশীল হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

দুই রাষ্ট্রপ্রধানের সাক্ষাতের সময় পরারাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments