সুন্দরবন থেকে বিপুল পরিমান অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ ৩ জলদস্যু আটক

জুন ২২ ২০১৭, ২৩:৫৫

বরিশালঃ সুন্দরবনের বড় কেয়াখালী খাল সংলগ্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে নূর ইসলাম বাহিনী’র ৩ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-৮। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় এ অভিযান চালানো হয়। এসময় বিপুল পরিমানের অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়। র‌্যব-৮র বরিশাল রূপাতলীস্থ প্রধান কার্যলয় থেকে প্রেরিত মেইল বার্তা সূত্রে জানাগেছে, ২২ জুন বৃহস্পতিবার র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা জলদস্যূ নূর ইসলাম বাহিনীর সম্ভাব্য আস্তানা সনাক্ত করে। এরই প্রেক্ষিতে র‌্যাবের একটি বিশেষ টিম ওই দিন মালঞ্চ নদী ধরে গোয়েন্দা দ্বারা চিহ্নিত এলাকার দিকে অগ্রসর হতে থাকে। দুপুর বেলা ১২ টার দিকে বড় কেয়াখালী খাল নামক স্থানের কাছাকাছি পৌছালে বাইনোকুলারের সাহায্যে নিবিড়ভাবে চারপাশ পর্যবেক্ষণ করে বনের ভিতর কয়েকজন লোককে সন্দেহজনক ভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়। এক পর্যায় র‌্যাব সদস্যগন কৌশল অবলম্বন করে জলদস্যুদের কাছাকাছি পৌছালে সন্দেহভাজন দস্যুরা র‌্যাবের উপস্থিতি

টের পেয়ে দৌড়ে পালিয়ে যেতে দেখে র‌্যাবের আভিযানিক দল তাদেরকে ধাওয়া করে অস্ত্র ও গুলিসহ ৩জন জলদস্যু/বনদস্যুকে আটক করে। আটককৃত জলদস্যু/বনদস্যুদেরা হলোঃ-নূর ইসলাম বাহিনীর সক্রিয় সদস্য মোঃ আবু ইছা ওরফে আশিক(২৮), মোঃ আঃ কাদের(৩৫) ও মোঃ নাজমুল শেখ(২৭)। আটককৃতদের ঠিকনা শাতক্ষীরার শ্যামনগর থানার শরা ও ট্যাংরাখালী এবং মংলা থানার বাগেরহাটের জয়মনি গ্রাম। পরে ঘটনাস্থলে ব্যাপক তল্লাশী করে ১টি বিদেশী একনালা বন্দুক, ১টি বিদেশী দোনালা বন্দুক, ১টি ওয়ানশুটারগান, ১টি .২২ এয়ার রাইফেল, বিভিন্ন অস্ত্রের ৮২ রাউন্ড গুলি ও জলদস্যুদের ব্যবহৃত বিভিন্ন দ্রব্যসামগ্রী উদ্ধার করা হয়। আটকৃতদের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর থানায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। উল্লেখ্য গত ৩১ মে ২০১৬ থেকে ২৯ এপ্রিল ২০১৭ পর্যন্ত (১১ মাসে) ১২টি বাহিনীর ১৩২জন জলদস্যু, ২৪৭টি অস্ত্র ও ১২,৪৯০ রাউন্ড গোলাবারুদ’সহ র‌্যাব-৮ এর নিকট আত্মসমর্পণ করে।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>