স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের ব্যাপারে আশাবাদী ভারত

মে ১৭ ২০১৭, ১০:০১

একটি স্বাধীন, সার্বভৌম ও ঐক্যবদ্ধ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গতকাল মঙ্গলবার ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে বৈঠকের পর এক সংবাদ সম্মেলনে এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। সফরকালে দুই পক্ষের মধ্যে পাঁচটি চুক্তিও হয়েছে।

আগামী জুলাইয়ে ভারতের প্রথম কোনো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ইসরায়েল সফরে যাবেন মোদি। তার আগে গত রবিবার চার দিনের সফরে নয়াদিল্লি পৌঁছান আব্বাস। সফরকালে তিনি ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় ছাড়াও সরকারের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন।

গতকাল সকালে মাহমুদ আব্বাসকে রাষ্ট্রপতি ভবনে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। এরপর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক হয় তাঁর। বৈঠকে দুই নেতার মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি আলোচনাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা হয়। পরে পাঁচটি চুক্তি হয় দুই দেশের মধ্যে।

বৈঠকের পর মোদি এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ভারত ভবিষ্যতে একটি স্বাধীন, সার্বভৌম ও ঐক্যবদ্ধ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের আশাবাদী। এ ছাড়া ইসরায়েল-ফিলিস্তিনের মধ্যকার ঝিমিয়ে পড়া শান্তি আলোচনা পুনরায় শুরু হবে বলেও মনে করেন তিনি। মোদি বলেন, ‘ভারত সব সময়ই দৃঢ়ভাবে ফিলিস্তিনকে সমর্থন দিয়ে আসছে। ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যে যাতে দ্রুত আলোচনা

শুরু করা যেতে পারে সে ব্যাপারে ভারত আশাবাদী। দুই পক্ষের মধ্যে বিদ্যমান সমস্যার একটি সমন্বিত সমাধান হওয়া দরকার। ’

এর আগে আব্বাসের সফর উপলক্ষে এক টুইটার বার্তায় ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গোপাল বাগলে বলেন, ‘গুরুত্বপূর্ণ বন্ধু ও ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে স্বাগত জানাচ্ছি। ’

সংবাদ সম্মেলনে আব্বাস ফিলিস্তিনের প্রতি ভারতের সংহতি প্রকাশের বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, ‘ভারত আমাদের বন্ধু। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তাদের প্রভাব আছে। ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংকট সমাধানে তারা একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। ’ আব্বাস জানান, সম্প্রতি তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংকটের দ্বিরাষ্ট্রিক সমাধানের সম্ভাবনা নিয়ে তাঁদের সঙ্গে আলাপ হয়েছে বলে জানান তিনি।

আব্বাসের সফরে ভারত ও ইসরায়েলের মধ্যে কূটনৈতিক পাসপোর্টধারীদের ভিসা ছাড়া ভ্রমণ, কৃষি, তথ্য-প্রযুক্তি, ইলেকট্রনিক্স, স্বাস্থ্য ও ক্রীড়া সেক্টরে সহযোগিতা বৃদ্ধির চুক্তি স্বাক্ষর হয়।

আব্বাসের সফর শুরুর আগে ফিলিস্তিনের কর্মকর্তা মাজদি খালদি বলেন, ভারতের সঙ্গে তাঁদের সম্পর্ক ঐতিহাসিক। তাঁরা এ সম্পর্ক আরো শক্তিশালী করার মধ্য দিয়ে ফিলিস্তিনের চলমান সংগ্রামে ভারতের সহযোগিতা চায়। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।

সূত্রঃ কালের কন্ঠ

Facebook Comments