বরিশাল লাইভ

ঢাকা, জানুয়ারি ১১, ২০১৭

প্রকাশ : জানুয়ারি ১১, ২০১৭ , ৭:১৮ অপরাহ্ণ
ঝালকাঠির ছাত্রলীগ কর্মীকে হত্যার প্রধান আসামি খুলনায় গ্রেপ্তার

ঝালকাঠি প্রতিনিধি :: ঝালকাঠির নলছিটিতে ছাত্রলীগ কর্মী সজল হাওলাদার হত্যা মামলার প্রধান আসামি সাইদুল তালুকদার ওরফে কানবালা সাইদুলকে (২৮) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। খুলনার দৌলতপুরে টানা তিনদিন অভিযান চালিয়ে মানিকতলা এলাকা থেকে মঙ্গলবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করে নলছিটি থানা পুলিশ।

আজ বুধবার সকালে তাকে নলছিটি থানায় নিয়ে আসা হয়। সাইদুল নলছিটি উপজেলার নাচনমহল গ্রামের আব্দুল আজিজ তালুকদারের ছেলে।

ঘটনার পর থেকে সে খুলনায় আত্মগোপনে ছিল বলে পুলিশ জানায়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে সে ছাত্রলীগ কর্মী সজল হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।

গত বছরের (২০১৬) ৩ জুলাই সকাল ১০টার দিকে নলছিটি উপজেলার মালুহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি পরিত্যাক্ত কক্ষে আটকে ছাত্রলীগ কর্মী সজলকে গুলি করা হয়। গুরুতর অবস্থায় তাকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পরে তাঁর মৃত্যু হয়। নিহত সজল হাওলাদার মোল্লারহাট জেড এ ভূট্টো ডিগ্রি কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে বরিশাল বিএম কলেজে ভর্তির অপেক্ষায় ছিল।

সে পশ্চিম কামদেরবপুর গ্রামের রফিকুল ইসলাম তুজাহার হাওলাদারের ছেলে। সজল মোল্লারহাট ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সক্রিয় একজন কর্মী ছিল। এ

ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে ঘটনার দিন রাতে নলছিটি থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। গত বছরের ২২ জানুয়ারি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সজলের সঙ্গে আসামীদের বিরোধ সুষ্টি হয়। এ বিরোধের জের ধরেই নির্বাচনের পরে বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থক প্রতিপক্ষরা সজলের পায়ে অস্ত্র ঠেকিয়ে গুলিদিয়ে হত্যা করে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নলছিটি থানার উপপরিদর্শক মো. ফিরোজ জানান, সজল হত্যা মামলার আসামি পশ্চিম কামদেবপুর গ্রামের সাইদকে গ্রেপ্তারের পরে সে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। তার জবানবন্দিতে সাইদুল তালুকদার ওরফে কানবালা সাইদুল ছাত্রলীগ কর্মী সজলকে অস্ত্র ঠেকিয়ে পায়ে গুলি করে বলে উল্লেখ করা হয়।

এর পর থেকে পুলিশ কানবালা সাইদুলকে খুঁজতে থাকে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে সাইদুল খুলনার দৌতলপুরের মানিকতলা এলাকায় আত্মগোপনে আছে। টানা তিনদিন ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

নলছিটি থানার ওসি এ কে এম সুলতান মাহামুদ বলেন, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও ঘটনার সাথে আরো কারা জড়িত জানার জন্য সাইদুল ওরফে কানবালা সাইদুলকে আদালতে সোপর্দ করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হবে।

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর