কলাপাড়ায় নিজের শরীরে লাগানো আগুনে গৃহবধূর মৃত্যু

আপডেট : March, 15, 2017, 8:53 pm

কলাপাড়া প্রতিনিধি
নিজের শরীরে আগুন লাগিয়ে ছালমা বেগম (৩০) নামের মানসিক ভারসাম্যহীন এক গৃহবধূর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাত আনুমানিক ১১টায় পৌরশহরের বাদুরতলী এলাকায়। দগ্ধ সালমাকে তাৎক্ষণিক কলাপাড়া হাসপাতালে নেয়া হয়। কিন্তু তার অবস্থা শঙ্কটাপন্ন হওয়ায় বরিশাল শেবাচিমে নেয়া হয়। সেখান থেকে বুধবার ঢাকায় নেয়ার পথে বেলা দুইটার সময় মারা যায়। নিহতের বোন লাইজু বেগম এ খবর নিশ্চিত করেছেন। পারিবারিক সূত্রে জানাগেছে, মানষিক ভারসাম্যহীন ছালমা বেগম নয় মাস ধরে অসুস্থ। কখনো কখনো সে অচেতন হয়ে পড়ত। স্বামী-সন্তানকেও কখনো চিনতে পারত না। কখনও স্বাভাবিক আচরন করতেন। মঙ্গলবার রাতে বড় মেয়ে রিপা আক্তার ও মেঝে মেয়ে নেকী আক্তার খেপুপাড়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কোচিংয়ে যায়। ছোট মেয়ে এবং দেড় বছরের একমাত্র ছেলে সায়েম ঘুমিয়ে ছিল। স্বামী ফজলুল

হক বাদুরতলী স্লুইসগেট সংলগ্ন মুদি দোকানে ছিলেন। এসময় ছালমা বেগম কুপি (ল্যাম্প) দিয়ে নিজের শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। তার শরীরের কাপড় ও মাথার চুলসহ শরীরে আগুন ধরে যায়। চিৎকার শুনে স্থানীয়রা তাকে দ্রুত উদ্ধার করে কলাপাড়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। কলাপাড়া হাসপতালের চিকিৎসক জে.এইচ.খান লেলীন জানান, অগ্নিদগ্ধ নারী ছালমা বেগমকে কলাপাড়া হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে দ্রুত বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। তার শরীরের ৪০ ভাগ পুড়ে গেছে। নিহত সালামার বোন লাইজু বেগম ও ভাই ফজলে মিয়া জানান, সে নিজেই নিজের গায়ে আগুন দিয়েছে বলে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। এঘটনায় আমরা কাউকে দায়ী করছিনা। কলাপাড়া থানার ওসি জি.এম শাহনেওয়াজ জানান, এ ঘটনায় কলাপাড়া থানায় কেউ অভিযোগ দায়ের করেনি। অভিযোগ পেলে আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Facebook Comments