ববি’র ভিসিকে অপসারনের দাবীতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে স্মারক লিপি

আপডেট : July, 17, 2017, 2:01 pm

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সরকারি নির্দেশ অমান্য করে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকুরি নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা কোঠা না রাখায় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিকে অপসারনের দাবীতে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল এবং রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে স্মারক লিপি দিয়েছে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড বরিশাল জেলা ও মহানগর শাখা। সোমবার বেলা ১১ টায় নগরীর অশ্বিনী কুমার হলের সামনে সংগঠনের মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডস বরিশাল মহানগরের আহবায়ক শেখ সাঈদ আহম্মেদ মান্নার সভাপতিত্বে মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন বরিশাল সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সাবেক সভাপতি কাজল ঘোষ, সহ-সভাপতি শুভংকর চক্রবর্তী, সাবেক সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা এ এমজি কবির ভুলু, ঘাতক দালাল নিমূল কমিটির নেতা শান্তি দাস, যুবলীগ নেতা জিয়াউর রহমান জিয়া, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মোয়াজ্জেম হোসেন ফিরোজ, মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক এ্যাড. গোলাম সরোয়ার রাজিব, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা মহিউদ্দিন আহমেদ সিফাতসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। এতে অণ্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সভাপতি এ্যাড. এস এম ইকবাল, মহানগর আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক নিরব হোসেন টুটুল, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন সেরনিয়াবাত, মুক্তিযোদ্ধা সংন্তান কমান্ড জেলা সদস্য সচিব মোঃ শাহারিয়ার কবির রিজন, মহানগর সদস্য মাহিদ খান প্রমুখ। এসময় বক্তারা বলেন,

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্প্রতি কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগে মুক্তিযোদ্ধা কোটা অনুসরন করা হচ্ছেনা। এছাড়াও নানা অনিয়ম নিয়োগ প্রক্রিয়াকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে। তারা বলেন, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে ২য় শ্রেনী উল্লেখ থাকলেও যারা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক সমমান পরীক্ষার ক্ষেত্রে প্রচলিত জিপিএর সাথে সনাতন পদ্ধতির বিভাগের সমতা নির্ধারনে জিপিএ ২.০০ থেকে জিপিএ ৩.০০ এর নীচে পেয়েছে তাদেরকে পরীক্ষার প্রবেশপত্র দেয়নি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। যা শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন সচিবালয়ের সমতা বিধান প্রজ্ঞাপনকে অবমাননার শামিল। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সম্প্রতি জাতীয় দৈনিক পত্রিকা ও স্থানীয় দৈনিক পত্রিকা সমূহে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগে নানা অনিয়মের কথা উঠে এসেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা সহ একটি অসাধুমহল নিয়োগ বানিজ্যকে প্রাতিষ্ঠানিকরুপ দিয়েছে। যা নিয়ন্ত্রন করছে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ বিরোধীয় একটি চক্র। এছাড়াও মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিল করা সহ নানা অনিয়মকে উৎসাহিত করছে ঐ বিরোধী চক্র। এসময় তারা অবিলম্বে নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল ও মুক্তিযোদ্ধা কোটা অন্তর্ভুক্তিক করন ও দূর্ণীতিবাজ ও স্বাধীনতা বিরোধী ভিসিকে অপসারনের জন্য জোর দাবী জানিয়েছেন তারা। মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল অণুষ্ঠিত হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে। পরবর্তী জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামানের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি দিয়েছে নেতৃবৃন্দ।

Facebook Comments