বাংলাবাজারে চাঁদা না দেওয়ায় বসতঘরে ভূমিদস্যুদের হামলা,ভাংচুর॥আহত ৪

আপডেট : March, 20, 2017, 8:53 pm

 

 

ভোলা প্রতিনিধিঃভোলার বাংলাবাজারে এক বিধবা ও তার পরিবারকে দখলীয় জমি থেকে উৎখাতের জন্য হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট চালায় স্থানীয় ভূমিদস্যু মানজুর বিশ্বাস বাহিনী। তাদেরকে বাধা দিয়ে ৪জনকে এলোপাথারী কুপিয়ে আহত করেছে ভূমিদস্যুরা। পরে স্থানীয়রা আহতদেরকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে। সূত্রে জানা গেছে, ভোলার বাংলাবাজার এলাকার উত্তর জয়নগর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত সেকান্দার আলীর ভোগদখলীয় জমিতে তার ছেলে মোঃ সোহাগ (৩০) ঘর উত্তোলন করে দীর্ঘদিন যাবৎ পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছিলো। ওই জমি দাবী করে স্থানীয় ভূমিদস্যু মানজুর বিশ্বাস বাহিনী কয়েক মাস আগে সোহাগ গংদের কাছে ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে। চাঁদা না দেওয়ায় মানজুর বাহিনী কয়েকবার সোহাগের বসতঘরে হামলা, ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট চালায়। মানজুর বাহিনীর দাবীকৃত ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা না দিলে ওই জমি থেকে সোহাগ গংদেরকে উচ্ছেদ করার হুমকি দিয়ে আসছিলো। বিষয়টি সোহাগ স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বার ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে জানায়। এ ব্যাপারে সোহাগ বাংলাবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে একটি অভিযোগও দায়ের করে। এ ঘটনায় বিভিন্ন

পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। এতেও ক্ষ্যান্ত হয়নি মানজুর বাহিনী। তারা চাঁদার দাবীতে সোহাগকে বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে যাচ্ছিলো। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার (১৮ মার্চ) মানজুর বিশ্বাস এর নেতৃত্বে নিরব বিশ্বাস, ফিরোজ, জুয়েল সহ একদল ভূমিদস্যু দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে সোহাগের বসতঘরে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। এসময় সোহাগ মানজুর বাহিনীকে বাধা দিলে ভূমিদস্যুরা সোহাগকে এলোপাথারী কুপিয়ে যখম করে। সোহাগকে কুপিয়ে যখম করার পর তার স্ত্রীর কহিনুর বেগম ৮ মাসের শিশু ঈমাম সাফী ও ৪ বছরের শিশু আবদুল্লাহ সাঈদীকে কোলে নিয়ে সোহাগকে বাচানোর জন্য তার শরীরের উপর ঝাপিয়ে পরে। এসময় মানজুর বাহিনীর লোকজন কহিনুরের কোল থেকে শিশু ইমাম সাফী ও সাঈদীকে ছিনিয়ে নিয়ে মাটিতে ফেলে দেয়। পরে মানজুর বাহিনী কহিনুর বেগম, সোহাগের বৃদ্ধা মা হাসিনা বেগম (৫৫), মোঃ শামিমকেও এলোপাথারী মারধর করে। স্থানীয়রা এসে আহতদেরকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এদের মধ্যে মোঃ সোহাগ ও তার মা হাসিনা বেগমের অবস্থা গুরুতর। এ ব্যাপারে দৌলতখান থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ বিষয়ে অভিযুক্ত মানজুর বিশ্বাস এর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

Facebook Comments