সুন্দরবনের দস্যু “ছোট রাজু” বাহিনীর ১৫ সদ‌স্যের আত্মসমর্পন

আপডেট : March, 30, 2017, 2:14 pm

বরিশাল : ১০ম বা‌হিনী হি‌সে‌বে সুন্দরবনের কুখ্যাত জলদস্যু “ছোট রাজু” বাহিনী আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পন করেছে।

আজ বৃহষ্পতিবার (৩০ মার্চ) বেলা ১২ টায় বরিশাল নগরের রুপাতলীতে র‌্যাব-৮ এর সদর দপ্তরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের উপস্থিতিতে তারা এ আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পন করেন।

এরআগে বুধবার (২৯ মার্চ) সুন্দরবনের শরনখোলা এবং চাদপাই রেঞ্জে র‌্যাবের বিশেষ অভিযানে কুখ্যাত জলদস্যু “ছোট রাজু” বাহিনীর প্রধান রাজুসহ ১৫ সদস্য আত্মসমর্পন করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব -৮ এর উপ-অধিনায়ক মেজর আদনান কবির।

আত্মসমর্পন কারীরা হলো, খুলনা, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট জেলার বাসিন্দা ও”ছোট রাজু” প্রধান মোঃ রাজু মোল্লা ওর‌ফে ছোট রাজু (৪৮), মোঃ ম‌নিরুল ইসলাম (৩৫), মোঃ সিরাজুল ইসলাম গাজী (২৯), মোঃ আলফাজ হো‌সেন (২৫), মোঃ হারুণ সরদার (৩৮), মোঃ বিল্লাল গাজী ওর‌ফে ম্যা‌জিক বিল্লাল (৩৬), মোঃ খ‌তিব গাজী ওর‌ফে খ‌তিব (৩৭), মোঃ মিকাইল গাজী (৩৭), মোঃ কামরুল সরদার (৩৯), মোঃ ফরহাদ সরদার (২৬), মোঃ সালাম গাজী (৩৭), মোঃ মিলন শেখ (২৫), মোঃ ফরহাদ গাজী (৩২), মোঃ সা‌ব্বির শেখ (৪২) ও মোঃ ম‌নিরুল গাজী ম‌নি (৩৯) ।

এদের কাছ থেকে ২১ টি দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্র এবং সকল প্রকার অস্ত্রের প্রায় ১ হাজার ১ হাজার ২৩৭ রাউন্ড তাজা গু‌লি উদ্ধার করা হয়।

যারম‌ধ্যে ৫ টি বি‌দেশী একনালা বন্দুক, ৫ টি বি‌দেশী দোনালা বন্দুক, ৫ টি প‌য়েন্ট ২২ বোর বি‌দেশী এয়ার রাই‌ফেল, ২ টি বি‌দেশী প‌য়েন্ট ২২ রাই‌ফেল, ৪ টি বি‌দেশী ওয়ান শ্যুটার র‌য়ে‌ছে।

মেজর আদনান কবির জানান, “ছোট রাজু” বা‌হিনী সুন্তরব‌নের মংলা, হাড়বা‌ড়িয়া, ভদ্রা এবং ব‌ঙ্গোপসাগর সংলগ্ন উপকূলবর্তী অঞ্চ‌লে সর্বা‌পেক্ষা স‌ক্রিয় এক‌টি জলদস্যু বা‌হিনী। পশুর নদী সংলগ্ন বি‌ভিন্ন খাল ও চাদপাই রে‌ঞ্জের ভদ্রা, মরাপশুর ও জুমরা সংলগ্ন অঞ্চ‌লের বনজী‌বি ও জলজী‌বি সাধারণ মানুষ তা‌দের টা‌র্গেট ছি‌লো। বিভিন্ন জলদস্যু/ডাকাত বাহিনী র‌্যাব এর হাতে নিস্ক্রিয় হওয়ার পাশাপাশি র‌্যাব-৮ এর ক্রমাগত

একাধিক কঠোর অভিযানের কারণে কোনঠাসা হয়ে আতংকিত হয়ে পড়ায় তারা অনুধাবন করে অধিক অর্থ উপার্জন ও কুপ্ররোচনার স্বীকার হয়ে তারা ভুল পথে পরিচালিত হয়েছিল।

২০১২ সাল থে‌কে “ছোট রাজু” সুন্দরবনে বিপুল বিক্র‌মে জলদস্যুবৃ‌ত্তি করে।

উল্লেখ্য র‌্যাবের কঠোর তৎপরতার কারণে ২০১৬ সালের ৩১ মে সুন্দরবনের কুখ্যাত জলদস্যু “মাস্টার বাহিনীর” ১০ জন জলদস্যু ৫২টি দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্র এবং প্রায় ৩৯০৪ রাউন্ড গোলাবারুদ এবং একই বছ‌রের ১৪ জুলাই কুখ্যাত জলদস্যু “মজনু ও ইলিয়াস বাহিনীর” ১১ জন জলদস্যু ২৫ টি দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্র এবং ১০২০ রাউন্ড বিভিন্ন প্রকার গোলাবারুদসহ র‌্যাব-৮ এর নিকট আত্মসমর্পন ক‌রে।

০৭ সে‌প্টেম্বর “আলম ও শান্ত বা‌হিনী‌” ১৪ জন ২০ টি দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্র এবং ১০০৮ রাউন্ড বিভিন্ন প্রকার গোলাবারুদসহ এবং ১৯ অ‌ক্টোবর “সাগর বা‌হিনীর” ১৩ জন সদস্য ২০ টি দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্র এবং ৫৯৬ রাউন্ড বিভিন্ন প্রকার গোলাবারুদসহ আত্মসমর্পণ করে।

এরপর ২৭ ন‌ভেম্বর ‌“খোকাবাবু বা‌হিনীর” ১২ জন সদস্য ২২ টি দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্র এবং ১০০৩ রাউন্ড বিভিন্ন প্রকার গোলাবারুদসহ এবং ৬ জানুয়ারী ২৫ টি দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্র ও সকল প্রকার অস্ত্রের প্রায় ১ হাজার ১০৫ রাউন্ড বি‌ভিন্ন প্রকার গোলাবারুদসহ “নোয়া বা‌হিনীর” ১২ সদস্য র‌্যাব-৮ এর নিকট আত্মসমর্পন ক‌রে।

চলতি বছরর ২৯ জানুয়ারী ৩১ টি দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্র এবং সকল প্রকার অস্ত্রের প্রায় ১ হাজার ৫০৭ রাউন্ড বি‌ভিন্ন প্রকার গোলাবারুদসহ জাহাঙ্গীর বা‌হিনীর ২০ সদস্য র‌্যাবের কা‌ছে আত্মসমর্পন ক‌রে।

১০ মা‌সে মোট ৯ টি বা‌হিনীর ৯২ জন জলদস্যূ, ১৯৫ টি অস্ত্র ও ১০ হাজার ১৪৩ রাউন্ড গোলাবারুদসহ র‌্যাব-৮ এর নিকট আত্মসমর্পন ক‌রে।

জলদস্যূ আত্মসমর্পন অনুষ্ঠানে র‌্যার ৮ এর অ‌ধিনায়ক লেঃ ক‌র্ণেল মোঃ আ‌নোয়ার উজ জামানের সভাপ‌তি‌ত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনাল‌য়ের সি‌নিয়র স‌চিব ড. কামাল উ‌দ্দিন আহ‌মেদ, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ।

Facebook Comments