এক পরিবারে দুই আজিজুর রহমান

আপডেট : March, 9, 2017, 8:21 pm

স্টাফ রিপোর্টার ॥
কিস্তির টাকা পরিশোধ না করায় নিটল টাটা কোম্পানীর দায়ের করা মামলায় ওয়ারেন্টভূক্ত আসামী মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আজিুর রহমান শাহীন। বুধবার ওই মামলায় শাহিনের পরিবর্তে গ্রেপ্তার করা হয় তার ভাই আজিজুর রহমান তুহিনকে। তুহিন পানি উন্নয়ন বোর্ডের চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারী। বর্তমানে ঢাকায় কর্মরত। বুধবার নগরীর আর্শেদ আলী সড়কের নিজ বাসা থেকে তুহিনকে গ্রেপ্তারের পর থানায় নিয়ে যান কোতয়ালী থানার এএসআই মামুন হাওলাদার। গ্রেপ্তারের পর ৩০ মিনিটের ব্যবধানে ছেড়ে দেয়া হয় আজিজুর রহমান তুহিনকে। আজিজুর রহমান শাহিন ও আজিজুর রহমান তুহিন আরশেদ আলী সড়কের মৃত আলহাজ্জ মোহাব্বত আলীর ছেলে। বৃহস্পতিবার দুপুরে আজিজুর রহমান তুহিনের মুঠোফোনে কল দিলে রিসভ করেন তার স্ত্রী। তিনি (তুহিনের স্ত্রী) এ প্রতিবেদককে বলেন, মূলত মামলার আসামী আজিজুর রহমান তুহিন নয় আজিজুর রহমান শাহিন। কিন্তু দু,জনের নামই আজিজুর রহমান হওয়ায় ভুলে আমার স্বামীকে থানায় নেয়া হয়েছিলো। কিন্তু তিনি আধ ঘন্টা পরেই বাসায় চলে এসেছেন। কোতয়ালী থানার এএসআই মামুন হাওলাদারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ওয়ারেন্ট বলেই আজিজুর রহমানকে ধরা হয়েছিলো। এর চাইতে বেশি কিছু জানতে হলে আপনি (সাংবাদিক) ওসি স্যারকে ফোন দেন। কোতয়ালী থানার ওসি শাহ মোঃ আওলাদ হোসেনকে বেশ কয়েকবার কলা দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি। কোতয়ালী থানার সহকারী

কমিশনার আসাদুজ্জামানের কাছে জানতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে কিছু জানেনা বলে জানান। এ ব্যপারে স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি ও বাস মালিক সমিতির সভাপতি আজিজুর রহমান শাহিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, উল্টো নিটল টাটার বিরুদ্ধে মামলা হওয়া উচিৎ। কারন তারা যে অভিযোগে মামলা করেছে তা ঠিকনা। টাকা ছয় মাস আগেই পরিশোধ করা হয়েছে। কিন্তু নিটল টাটা কর্তৃপক্ষ ভুলে মামলা করেছে। এজন্য অবশ্য নিটল টাটার পক্ষ থেকে ক্ষমা চেয়েছে। মূলত একটি কিস্তি দিতে দেরী হওয়াতে এ সমস্যা হয়েছে। আপনি (সাংবাদিক) প্রয়োজনে নিটল টাটার বরিশালের ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। তবে এনিয়ে রিপোর্ট না করাই ভাল। আসামী পক্ষের আইনজীবী হিসেবে শুনানী করেন বরিশাল আইনজীবী সমিতির সভাপতি ওবায়েদুল্লাহ সাজু। তিনি বলেন, কিস্তির টাকা পরিশোধ না করায় মামলা হয়েছিলো। ওই মামলায় গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি হয়। এক সপ্তাহের মধ্যে টাকা পরিশোধের কথা দেয়ায় আসামীর জামিন মঞ্জুর করেছেন অতিরিক্ত চীফ মেট্রোপলিট্রন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক অমিত কুমার দে। তাছাড়া কাগজপত্রে আসামীর নাম আজিজুর রহমান। আমরা অজিজুর রহমানকেই জামিন করিয়েছি। উল্লেখ্য কিস্তির টাকা পরিশোধ না করায় আজিজুর রহমানকে অভিযুক্ত করে নটল টাটার পক্ষে জনৈক মনিরুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি ঢাকার চীফ মেট্রোপলিট্রন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় তার বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ইস্যু করা হয়।

Facebook Comments