প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডারে নিয়োগ পাচ্ছেন আরও ১৩৯ জন

আপডেট : June, 18, 2017, 5:23 pm

৩৫তম বিসিএস-উত্তীর্ণদের মধ্যে থেকে আরও ১৩৯ জনকে প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডারের বিভিন্ন পদে নিয়োগের সুপারিশ করেছে পিএসসি। আজ রোববার বিকেলে এ সুপারিশ করা হয় ব‌লে জানান পিএসসির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সা‌দিক।

গত ১৭ এপ্রিল প্রথম দফায় ৩৯৮ জনকে প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডার প‌দে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়। প‌রে গত মে মা‌সে আরও ১৬০ জন‌কে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়। এ নিয়ে মোট ৬৯৭ জন‌কে প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডার প‌দে নিয়োগের সুপারিশ করা হ‌লো।

আজ সুপারিশ করা প্রার্থীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি পরিসংখ্যান কর্মকর্তা পদে নিয়োগ পেয়েছেন। এই সংখ্যা ৬০ জন। এ ছাড়া ৩৪ জন সাবরেজিস্ট্রার, ১০ জন সহকারী মহাপরিদর্শকসহ বা‌কিদের স্বাস্থ্য, শিক্ষা, পাসপোর্ট অধিদপ্তরসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়।

গত বছরের ১৭ আগস্ট ৩৫তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হয়। এতে ৫ হাজার ৫৩৩ জন উত্তীর্ণ হন। এর মধ্যে ২ হাজার ১৫৮ জনকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগের সুপারিশ করা হলেও পদস্বল্পতার কারণে ৩ হাজার ৩৫৯ জনকে নন-ক্যাডারের জন্য রাখা হয়। গত বছরের নভেম্বরে তাঁদের নন-ক্যাডারে নিয়োগের জন্য প্রথমবারের মতো অনলাইনে আবেদনপত্র নেওয়া হয়। ২ হাজার ৭২৫ জন এতে আবেদন করেন।

পিএসসি সূত্রে জানা গেছে, ৩৫তম বিসিএসের নন-ক্যাডারে নিয়োগের জন্য ৩০ আগস্ট সব মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেয় পিএসসি। এ ছাড়া বেশিসংখ্যক প্রার্থী যেন

নিয়োগ পান, সে জন্য কোটার প্রার্থী না পাওয়া গেলে সেখানে মেধাবীদের নিয়োগ দেওয়ার প্রস্তাব পাঠানো হয় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে। পরে সেটি মন্ত্রিপরিষদে গেলে কোটা শিথিলের সুপারিশ করা হয়।

২০১০ সাল থেকে বিসিএসের মাধ্যমে নন-ক্যাডার পদে নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু হয়। এ জন্য ওই বছরের ১০ মে নন-ক্যাডার বিধিমালা, ২০১০ জারি করা হয়। এতে বলা হয়েছে, শূন্য পদের ৫০ শতাংশ বিসিএসে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের দিয়ে পূরণ করা হবে। ২০১৪ সালে এই বিধি সংশোধন করে প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডার পদের পাশাপাশি দ্বিতীয় শ্রেণির কর্মকর্তা পদেও নিয়োগের ব্যবস্থা রাখা হয়। তবে পরবর্তী বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশের আগ পর্যন্ত আগের বিসিএস থেকে নন-ক্যাডারে নিয়োগ চলে। এই নিয়মে ৩৬তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশের আগ পর্যন্ত ৩৫তম বিসিএসে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের নিয়োগ চলবে।

এ বিষ‌য়ে পিএসসির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক আজ বি‌কে‌লে বলেন, ‘১৭ আগস্ট ৩৫তম বিসিএসের ফল প্রকাশের পর ৩০ আগস্টই আমরা সব মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়ে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির শূন্য পদের তালিকা চেয়েছি। ‌বি‌সিএস-উত্তীর্ণদের ম‌ধ্য থে‌কে বে‌শি ক‌রে যেন চাকরি পায়, সে জন্য আমরা সচেষ্ট আছি। এখন পর্যন্ত মোট ৬৯৭ জন‌কে প্রথম শ্রেণির বিভিন্ন প‌দে নিয়োগের সুপারিশ করা হ‌লো। ঈদের পর আমরা দ্বিতীয় শ্রেণির বিভিন্ন প‌দে নিয়োগের সুপারিশ করব। আশা কর‌ছি, ‌আবেদনকারীদের একটা বড় অংশই চাক‌রি পাবে।’

Facebook Comments