ঈদে নগরবাসীদের তিন স্তরে নিরাপত্তা দেবে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ

আপডেট : June, 18, 2017, 10:38 pm

ঈদে নগরবাসী ও ঘরমুখি যাত্রীদের তিনস্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা দেবে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ। এ উপলক্ষে রবিবার পুলিশ কমিশনার এসএম রুহুল আমিনসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বরিশালে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মালিক এবং জনপ্রতিনিধিদের সাথে বৈঠক করেছেন। বরিশাল মেট্রোপালিটন পুলিশের মূখপাত্র ও সহকারী পুলিশ কমিশনার (ডিবি) মো. শাখয়াত হোসেন বলেন, নগরবাসী ও ঘরমুখী যাত্রীদের তিনস্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা দেবে পুলিশ। সব ধরণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অতীতের চেয়ে এবারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংখ্যা থাকবে ২ গুন বেশী। বিশেষ করে নগরীর নথুল্লাবাদ ও রূপাতলী বাস টার্মিনাল, বরিশাল লঞ্চ টার্মিনাল এলাকা যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। এর পাশাপাশি নগরীর বিনোদন কেন্দ্রেগুলোতেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। লঞ্চ ও বাসে ছিনতাইকারী, মলমপার্টি প্রতিরোধে যাত্রীদের সচেতনতার জন্য বাস এবং লঞ্চ মালিকদের সহযোগীতায় ঈদের আগে-পরের ৭ দিন ভিডিও চিত্রের মাধ্যমে প্রচারণ চালানো হবে। এর সাথে ছোট-ছোট যানবাহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও হয়ানীর থেকে যাত্রীদের মুক্ত করতে এবারই প্রথম লঞ্চ টার্মিনালের পাশে বিভিন্ন রুটের বাস রাখার প্রস্তুতি চলছে। সভায় পরিবহন মালিকদের ঈদে লঞ্চে ও বাসে যারা

যাত্রী হয়ে উঠবেন তাদের নিরাপত্তা ও সেবা এ দুটোই নিশ্চিত করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। লঞ্চগুলোর প্রবেশ দরজায় সিসি ক্যামেরা বসাতে হবে, পাশাপাশি বাসে যাত্রী তোলার পর গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়ার আগে ক্যামেরার মাধ্যমে ছবি ধারন করতে হবে। যাতে দুস্কৃতিকারীরা বুঝতে পারে তাদের সম্পর্কে তথ্য নেয়া হচ্ছে। যেখানে মানুষের ভীড় থাকে সেখানেই কিছু লোক রয়েছে যারা নাশকতা কিংবা অপ্রিতীকর ঘটনার সৃষ্টি করে। এসব রোধে সবাইকে এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান পুলিশ কমিশনার এসএম রুহুল আমিন। সভায় উপস্থিত পরিবহন মালিকরা মহাসড়ক থেকে নছিমন, করিমন, ভটভটি, টমটম, থ্রি হুইলারসহ সকল অবৈধ যান ও নৌ-পথ থেকে ট্রলারসহ সকল অবৈধ যান রোধে প্রশাসনের সকল স্তরের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এতে দুর্ঘটনা কমবে বলেও তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সভায় উপ পুলিশ কমিশনার (সদর). কামরুল আমিন, উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) হাবিবুর রহমান, উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) গোলাম রউফ খান পিপিএম বার, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) উত্তম কুমার পালসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, ডিজিএফআই ও র‌্যাব-৮ এর প্রতিনিধি, লঞ্চ ও বাস মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ এবং সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments