ঈদে যাত্রী বিড়ম্বনায় আগৈলঝাড়া-গোপালগঞ্জ-খুলনা মহাসড়ক

আপডেট : June, 20, 2017, 11:50 pm

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নাড়ীর টানে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের বিড়ম্বনার যাত্রাপথ আগৈলঝাড়া-গোপালগঞ্জ-খুলনা মহাসড়ক। আঞ্চলিক এই মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং উঠে ছোট-বড় গর্ত হয়ে ঈদে যান চলাচলে চরম সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। সওজ বিভাগ মাঝে মধ্যে সংস্কারের জন্য অর্থ বরাদ্দ করলেও অত্যান্ত নিম্ন মানের জোরাতালি দেয়া কাজের ফলে অল্প দিনেই তা উঠে যাচ্ছে , তার উপর বর্তমানে ভারি বর্ষণেও সড়কের পার্শ্ব ভেঙ্গে ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। বরিশাল সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে তৎকালীন জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি’র ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আগৈলঝাড়া-গৌরনদী-গোপালগঞ্জ-খুলনা সড়কটি আঞ্চলিক মহাসড়কের উন্নীত করা হয়। চারদলীয় জোট সরকার ক্ষমতায় এসে রাজনৈতিক বিবেচনায় প্রকল্পটি বাতিল করে। পুনরায় মহাজোট সরকার ক্ষমতায় এসে ২০০৯ সালে দুটি গ্রুপে এডিপি’র অর্থায়নে ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ১টি

কালভার্টসহ গৌরনদী থেকে আগৈলঝাড়া সদর পর্যন্ত ৮.২০ কিলোমিটার ও ২১ কোটি টাকা ব্যয়ে ৭টি কালভার্ট ও ১টি ব্রিজসহ আগৈলঝাড়া উপজেলা সদর থেকে পয়সারহাট পর্যন্ত ৭.৬ কিলোমিটার মহাসড়কের কার্যাদেশ দেয়া হয়। শুরুতেই নিম্ন মানের নির্মান সামগ্রী আর অব্যবস্থাপনার মধ্যে কাজের ফলে মহাসড়কটির এই বেহাল দশা। এদিকে মহাসড়কের আগৈলঝাড়া উপজেলার বিভিন্ন স্থানে স্থানীয় ঠিকাদাররা বিভিন্ন নির্মান সামগ্রী রেখে সড়ক বড় একটি অংশ দখল করে রেখেছে। তারা দীর্ঘদিন যাবত একাধিক স্থানে পাথর ও বালু এনে মহাসড়ক জুরে স্তুপ করে রাখায় দ্রুতগামী যানবাহন চলাচলে চরম সমস্যাসহ রাতের অন্ধকারে ঘটছে অহরহ দূর্ঘটনা। এ ব্যপারে সওজ এর এসডি দুলাল প্রমানিক জানান, আঞ্চলিক এই মহাসড়কটি জাতীয় মহাসড়কে উন্নীত করা হয়েছে। তাই এখানে ব্যাপক কাজ করতে হবে। ঈদ উপলক্ষে সওজ বিভাগ থেকে যাত্রী বিড়ম্বনা দূর করতে সংস্কার করা হচ্ছে।

Facebook Comments