[english_date], [bangla_day]

প্রত্যাবর্তনে মেসিকে হার উপহার দিল আর্জেন্টিনা

আপডেট: March 23, 2019

নয় মাস পরে ফিরেছেন। এর মাঝে প্রিয় কিছু সতীর্থ বিদায় নিয়েছেন। অনেকেই জায়গা পাচ্ছেন না দলে। দলে আশাজাগানিয়া অনেকে তরুণের ভিড়। বদলে গেছে অনেক কিছু। কিন্তু লিওনেল মেসি অবাক হয়ে দেখলেন, বদলায়নি কিছুই! বিশ্বকাপে ফ্রান্সের কাছে ৪-৩ গোলে হারের পর জাতীয় দল থেকে ছুটি নিয়েছেন। ছুটি কাটিয়ে ফেরার পর জাতীয় দল আবারও তাঁকে হার উপহার দিল। এবার ৩-১ গোলের হার, সেটাও ভেনেজুয়েলার কাছে। দক্ষিণ আমেরিকার একমাত্র দেশ হিসেবে বিশ্বকাপ খেলা হয়নি যাদের।

ফেরার আগেই মেসি একটা দুঃসংবাদ পেয়েছিলেন। এই ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপের পর আর্জেন্টিনার ফেরার কথা ছিল অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়ারও, কিন্তু অনুশীলনে পেশিতে চোট পেয়েছেন পিএসজি উইঙ্গার। এ কারণে দলের ছকই বদলেছেন কোচ লিওনেল স্কালোনি। ৪-২-৩-১-এর বদলে ৩-৪-২-১। সবার সামনে ইন্টার মিলানের লাওতারো মার্তিনেজ, তাঁর পেছনে মেসির পাশে পিতি মার্তিনেজ। এ পরীক্ষায় মেসিরা সদলবলে ফেল করেছেন।

এতে মেসির কোনো দায় ছিল না। নিজের সর্বোচ্চটাই দিয়েছেন। মার্তিনেজের সঙ্গে তাঁর জুটি ভবিষ্যৎ নিয়ে আশাবাদী করে তুলতে পারে আর্জেন্টাইন সমর্থকদের। বারবার ভেনেজুয়েলার রক্ষণকে ফাঁকি দিয়ে মার্তিনেজের কাছে বল পাঠিয়েছেন। মার্তিনেজও খারাপ করেননি। আর্জেন্টিনার একমাত্র গোলটি তাঁরই। সেটাও ওই মেসির ডিফেন্সচেরা এক পাস থেকেই। প্রতিপক্ষের গোলরক্ষক ফ্যারিনেজ বেশ কয়েকটি দুর্দান্ত সেভ দিয়ে দলকে বাঁচিয়েছেন। মেসিকেও বার দুয়েক গোলবঞ্চিত করেছেন এই তরুণ।

দুর্দান্ত এক গোলের পর মুরিলো। ছবি: এএফপিদুর্দান্ত এক গোলের পর মুরিলো। 

এটুকু পড়লে মনে হতে পারে ম্যাচে ভেনেজুয়েলার জয় তাহলে অপ্রত্যাশিত। ভুল! এর আগে ১৬ বারের দেখায় আর্জেন্টিনাকে মাত্র একবার হারালেও আজ শুরু থেকে দুর্দান্ত খেলেছে দলটি। চতুর্থ মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারত তারা। সেটা নিয়ে হাপিত্যেশ করার আগেই ষষ্ঠ মিনিটে এগিয়ে গেছে তারা। নিজেদের অর্ধ থেকে রোসালেসের নিখুঁত থ্রু বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ঠান্ডা মাথায় প্লেসিং করেছেন রনডন। এগিয়ে গিয়েও খেলায় প্রাধান্য ছিল ভেনেজুয়েলার। আর্জেন্টাইন সমর্থকদের দুয়োও শোনা যাচ্ছিল। খেলার ধাঁচে মনে হচ্ছিল, মেসির সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারছে না এই তরুণ দল।

২০ মিনিটের পর থেকে ম্যাচে ফেরে আর্জেন্টিনা। মেসি ও মার্তিনেজের সমন্বয়ে ভয় জাগানো বেশ কিছু আক্রমণও হয়েছে। পাল্টা আক্রমণে ভেনেজুয়েলাও আর্জেন্টিনার তিনজনের রক্ষণ নিয়ে নামার সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিচ্ছিল। ৪৪ মিনিটের দ্বিতীয় গোলে অবশ্য রক্ষণের সংখ্যার কোনো অবদান নেই। ডি-বক্সের সামনে ফ্রি কিক পেয়ে দ্রুত বল নিয়ে বেরিয়ে যান প্রথম গোলের কারিগর রোসালেস। ঝিম মেরে পড়ে থাকা আর্জেন্টিনা রক্ষণকে অবাক করে দিয়ে বক্সের বাঁ প্রান্ত থেকে গোলার মতো এক শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মুরিলো। ঝাঁপিয়ে পড়া আরমানির পক্ষে সম্ভব ছিল না সেটা ঠেকানো।

৫৯ মিনিটে আর্জেন্টিনা এক গোল শোধ করলেও ম্যাচের মীমাংসা হয়ে যায় ৭৭ মিনিটে। জোসেফ মার্টিনেজকে ফাউল করায় পেনাল্টি পায় ভেনেজুয়েলা। সেখান থেকে নিজেই গোল করেছেন মার্টিনেজ। বলের দখল প্রতিপক্ষের চেয়ে দ্বিগুণ রেখেও তাই লাভ হয়নি আর্জেন্টিনার। হার দিয়েই জাতীয় দলে ফিরতে হলো মেসিকে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন