[english_date], [bangla_day]

দুর্বল হয়ে বরিশালে হানা দিবে ‘ফণি’

আপডেট: May 3, 2019

প্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণী প্রায় অর্ধেক গতিবেগ নিয়ে খুলনা এবং বরিশালের উপকূলে আছড়ে পড়বে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। ভারতের ওডিশা রাজ্যে বাংলাদেশ সময় আজ শুক্রবার সকাল নয়টার দিকে ১৮০-২০০ কিলোমিটার বেগে আঘাত হেনেছে ফণী। আজ সন্ধ্যার দিকে ফণী বাংলাদেশে ৮০-১০০ কিলোমিটার বেগে প্রবেশ করবে। আজ-কাল দুদিন ধরে দেশজুড়ে থাকবে ফণীর প্রভাব।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক শামছুদ্দীন আহমেদ বলেন, ফণী ওডিশা হয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দিকে যাবে। সেখান থেকে আস্তে আস্তে দুর্বল হয়ে বাংলাদেশের দিকে আসবে। আজ বিকেলের পর তা বাংলাদেশে প্রবেশ করতে থাকবে। বাংলাদেশের ওপর দিয়ে অতিক্রম করবে সন্ধ্যায়। সারারাত ফণী সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, বরিশাল অঞ্চলের দিক থেকে ফরিদপুর, ঢাকা হয়ে ভারতের মেঘালয়ের দিকে যাবে।

শামছুদ্দীন আহমেদ বলেন, বাংলাদেশে যখন ফণী প্রবেশ করবে, তখন এর গতি অর্ধেকে নেমে ৮০-১০০ কিলোমিটার হবে। ফণীর প্রভাবে আজ রাত ও কাল শনিবার সারা দিন বৃষ্টি থাকবে। তিনি জানান, মোংলা, পায়রা বন্দরে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত বহাল রাখা হচ্ছে। আপাতত এর বেশি বাড়ছে না।

সরকার জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড় ফণীর আঘাত মোকাবিলায় প্রস্তুত রয়েছে বাংলাদেশ। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সচিবালয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে আন্তমন্ত্রণালয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সমন্বয় কমিটির সভা হয়েছে। সভায় ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র সম্ভাব্য আঘাতে মানুষের প্রাণহানি রোধ এবং সম্পদের ক্ষতি কমিয়ে আনতে সরকার সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিয়েছে। আশা করছি, ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানলেও বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হবে না।’ তিনি জানান, বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত ফণীর বর্তমান অবস্থান ও গতিবিধি দুর্যোগ মন্ত্রণালয় এবং সংশ্লিষ্ট দপ্তর, অধিদপ্তর সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন